Sunday, 21 October 2018

Namaste-england-movie-review-in-bengali

নমস্তে ইংল্যান্ড ছবির  বৃত্তান্ত : শুধুই কাহিনী দর্শক টানার প্রচেষ্টা মাত্র। 
:মুক্তির তারিখঃ ১৯ শে অক্টোবর ২০১৮। 
:পরিচালকঃ বিপুল অমৃত লাল শাহ।  
:প্রোডাকশন হাউস : রিলায়্যান্স ইন্টারটেনমেন্ট। 
:লেখকঃ সুরেশ নেয়ার ও রিতেশ শাহ। 
:কাস্ট : অর্জুন কাপুর ও পরিণীতি চোপড়া। 
:সংগীতঃ মান্নান শাহ ,বাদশা ও ঋষি রিচ। 
:সম্পাদকঃ অমিতাভ শুক্লা। 
:প্রোডাকশন কোম্পানি : রিল্যান্স ইন্টার টাইনমেন্ট ,পেন ইন্ডিয়া ,নমস্তে উৎপাদন লিমিটেড ,ব্লকবাস্টার মুভি ইন্টারটেনমেন্ট। 
:সময়ঃ ২ঘণ্টা ২১ মিনিট। 
:ব্রেকিং রিভিউঃ  নিজের তৈরি আগের সফল ফিল্ম বানিয়ে নাম কমিয়ে ,আবার সেই একই ভাবনায় ফিল্ম তৈরি করা সহজ হতে পারে কিন্তু দর্শকদের সময়টা খুব ভালো ভাবে  কাটবে না ,যখন ও আগের ছবির মতোই ছবি হবে ভেবে  যায় আর তখন   বোরিং ফিল্ম ছাড়া আর কিছুই মেলে না তার হাতে। জি হ্যাঁ আমরা যার কথা বলছি তিনি হলেন পরিচালক ও নির্দেশক বিপুল অমৃতলাল শাহজী কি "নমস্তে ইংল্যান্ড" কি। আজ থেকে কয়েক দশক আগে পরিচালক বিপুলঅমৃতলাল শাহ অক্ষয় কুমার ও ক্যাটরিনা কাইফ জুটি কে নিয়ে "নমস্তে লন্ডন "ছবি নিয়ে এসেছিলএবং ওই সময় এই জুটির সঙ্গে ছবির কাহানি ও গান দর্শকদের মনে দাগ কেটে ছিল। কিন্তু পরিচালক বার বার প্রচার করে ছিল যে এই ছবিটি একেবারে আনকোরা নতুন ধরণের কাহানি হবে আগের ছোট থেকে। তবে  পরিতাপের বিষয় হল যে এই ছবিতে কোনো দম নেই। 
কাহানি : ছবির কাহিনী শুরু হয় সাধারণ যেমন অনেক ছবিতে যে ভাবে হয় ঠিক সেই ভাবেই,যেখানে পরম (অর্জুন কাপুর ) ও জেসমিত (পরিণীতি চোপড়া ) এর সঙ্গে আচানক প্রেম ভালোবাসা হয়ে যায়, যখন প্রেম ভালোবাসা হয় তখন দশেরার যাত্রার সময় জেসমিতকে নাচতে দেখে। জেসমিতের স্বপ্ন হল সে একজন ভালো জুয়েলারি ডিজাইনার হবে,এবং নিজে স্বাবলম্বী হবে। কিন্তু তার দাদাজী ও ভাইয়ের কথা হলো যে মেয়েরা বাচ্চা জন্ম দেবে আর ঘর সামলাবে। কিন্তু জেসমিত যে ভাবেই হোক তা স্বপ্ন সে পুরা করবেই। তাই সে পরমকে বিয়ে করতে রাজি হয়ে যায় এই শর্তে যে তাকে বিয়ের পর চাকরি করতে দিতে হবে। দুজনের তো বিয়ে হয়ে তো যাই কিন্তু বিদেশ যাওয়ার পর ওদের খুব অসুবিধে হতে থাকে।  এর পরেই ইন্টারভ্যাল। ইন্টারভ্যালের পর টুইস্ট  জেসমিত বিয়ের নাটক করে পরমের সঙ্গে ইংল্যান্ড চলে যায়। পরমের মতো দর্শক  ও এই টুয়িস্ট তে হয়রান  হয়ে যায়। বিদেশে গিয়ে ওখানকার সিটিজেনশিপ নেওয়া ও নিজের ও পরমের স্বপ্ন সফল করা জেসমিতের প্ল্যান ছিল। 
এখন জেসমিতের কাছে যাওয়ার জন্য পরমের বেআইনি ভাবে লন্ডন আসা। আর মিথ্যে বিয়ের  জেসমিতকে  দেখানো এইভাবেই কাহিনী চলতে থাকে আর কি। ক্লাইমেক্স সিকুয়েন্স  কিন্তু নিরাশ  করে দেই। 
রিভিউঃ পরিচালক নিজের ফিল্মের ডায়লগ রেখেছেনঃ "পিয়ার কই ভি দুরি তয় কর  সকতা " ফ্লিমে  ভাবে যিনি পিয়ার যে যে ভাসতে উনি বোঝাতে চেয়েছেন তা বাস্তব সম্মত নয়। কমজোর  ঢিলে ঢালা স্ক্রীনপ্লে  `দর্শকদের বোরিং করে ছেড়েছে আর কি। যাইহোক অর্জুন কাপুর আর পরিণীতি  চোপড়ার জুটি ২০১২ সালের "ইশ্ক জাদে " খুব পচ্ছন্দ করে ছিল এবং কাহিনী ছিল খুব ভালো। 
Share This
Previous Post
Next Post

Pellentesque vitae lectus in mauris sollicitudin ornare sit amet eget ligula. Donec pharetra, arcu eu consectetur semper, est nulla sodales risus, vel efficitur orci justo quis tellus. Phasellus sit amet est pharetra

0 মন্তব্য(গুলি):

thank you for comment